মাহবুব লিটুর কয়েকটি ছড়া

অফুরন্ত তাই

বাঙলা ভাষা চোখের মণি

 সে তো মায়ের দান

 যে ভাষাতে কথা বলি

 আমার প্রাণের প্রাণ ।

বাঙলা ভাষা মায়ের হাসি

শাপলা মালা গাঁথা

 ভালোবাসায় ভরে ওঠে

অমর নকশী কাঁথা ।

এ ভাষাতেই জীবন মরণ

 এ ভাষাতেই পড়ি

শ্রদ্ধা ভালবাসা যা সব

 এ ভাষাতেই গড়ি ।

তাইতো বলি এমন মধুর

 ভাষা কোথাও নাই

 এ ভাষাতেই মায়ের আদর

 অফুরন্ত তাই ।

কী সব্বোনাশ ওরে বাব্বা

নেউলে যখন কানাকানি

 করে লখাইয়ের সংগে

 তাই না দেখে নেচে ওঠে

লেজ দুলিয়ে ফিঙ্গে ।

চশমা পন্ডিত হুক্কা হুয়া

 ডেকে বলে শোন্

 নেউলে লখাই কোলাকুলি

 মিল হয়নি মন্ ।

কানাকানি, রং ঢং , ভালোবাসাবাসি

 বেলেল্লাপনা শুনলে পরে

 বড্ড লাগে হাসি ।

ভালোবাসার দীক্ষা যদি

সত্যি নিতে হয়

গুরু আমায় মানতে হবে

তাইলে যদি জয় !

তার লাগি বলি আমি

 মন দিয়ে শোন্

পাঠশালাতে আসতে হবে

চাইনি কোন টোল্।

ভালোবাসা যদি চাস

 বাসতে হবে ভালো

যেমন ধর কচি মুরগী

সামনে তোদের এলো ,

ভোগের কথা না ভেবে

ত্যাগের বাণী আন্ মনে

আধ মরা ঐ শিকারটাকে

রাখিস আমার পণে।

এইভাবে ভালোবাসা

হৃদয় পটে বসে

তক্ষুণি চিত্ত আমার ভালোবাসায় ভাসে।

এই হলো ভালোবাসার

দীক্ষা , আমার দীক্ষা

 মানতে যদি না চাস

তবে দেব চরম শিক্ষা ।

 

হাঁস

চিত্রা নদীর নিজেল ঢেউয়ে

 রকমারি হাঁস দোলে

 এদিক-ওদিক তাকায় তারা

 প্যাঁক্ প্যাঁক্ ধ্বনি তোলে ।

বাদামী,সাদা,খয়েরী,কালো

 রোদেতে ঝিক্ ঝিক্

সাঁতরে বেড়ায় খুঁজতে খাবার

 লেজ কোঁড়া চিক্ চিক্ ।

ঝিলিমিলি নদীর কূলে

 নুড়ি,শামুক খায়

 উদর পুরলে মহানন্দে

 লেজগুলো নাচায় ।

 

পাখী

পাখীর আছে অসীম আকাশ

 উড়তে দিতে হয়

ওদেরও তো আছে প্রাণ

 ভালোবাসতে হয় ।

মায়ের আদর আমরা যেমন

 নিতে ভালোবাসি

তাদেরও তো ইচ্ছে করে

দেখতে মায়ের হাসি ।

শখের বশে আদর করে

 বন্দী করি খাঁচায়

 কেউ বা আবার তাদের মাথা

 চিবোয় দারুণ মজায় ।

 ভোগ,উপভোগ,লোভ,শখ

দিব বিসর্জন পাখীর ডাকে ভরবে এ দেশ

 তাই হবে অর্জন ।

Facebook Comments

comments

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top