ইয়েটসের কবিতা II অনুবাদ: মোহাম্মদ সাঈদ হাসান খান

স্বর্গের চাদর

আমার যদি থাকত স্বর্গে বোনা চাদর

সোনালী আর রূপালী আলোয় গড়া

নীল আর হালকা ও গাঢ় অন্ধকার চাদর

আলো আর আঁধারের আর আধো আলোয় গড়া

তবে সে চাদর আমি তোমার চলার পথে দিতাম বিছিয়ে

কিন্তু  গরীব আমি, আছে শুধু স্বপ্ন আমার

আমি আমার স্বপ্নগুলো তোমার চলার পথে দিয়েছি বিছিয়ে

আলতো করে পা ফেলো কারণ তুমি মাড়িয়ে যাচ্ছ স্বপ্ন আমার।

ইনিজফ্রি লেকের দ্বীপ

 আমি এখন উড়াল দেব চলে যাব, চলে যাব- ইনিজফ্রি,

আর সেখানে ছোট্ট এক বাঁধব বাসা কাদামাটি আর খড়কুটে;

আমার থাকবে শিমের সারি নয়খানা, আর এক চাক মধু মৌমাছির,

আর আমি, থাকব একা- মৌমাছিদের গুঞ্জন ঘেরা কাননে।

আর আমি সেখানে শান্তি পাব, কারণ শান্তি ধীরে এসে ঝরে পড়ে,

ঝরে পড়ে ভোরের চাদর বেয়ে যেখানে ঝিঁঝিরা গান গায়;

সেখানে রাত্রি শুধু মিটিমিটি আলো, আর দুপুর মাখা গোলাপী আবীরে,

আর সন্ধ্যা নামে লিনেটের পাখার ঝাপটায়।

আমি এখন উড়াল দেব চলে যাব, কারণ সব সময় দিনে, রাতে

আমি লেকের জলের আওয়াজ শুনি যা পাড় ভাঙে মৃদু স্বরে;

যখন আমি দাঁড়িয়ে থাকি রাজপথ কিংবা ধূসর ফুটপাতে,

তাহারেই শুনি আমি অন্তরের গহীন ভেতরে।

উইলিয়াম বাটলার ইয়েটস বিংশ শতাব্দীর ইংরেজি সাহিত্যের অন্যতম প্রধান কবি। প্রতীকীবাদী এই আইরিশ কবির জন্ম ১৮৬৫ সালে। তার কবিতায় আইরিশ লোকগাথা ও অতিপ্রাকৃতের ব্যবহার লক্ষ্মণীয়। এছাড়াও বিশেষ করে তার সাহিত্য জীবনের শুরুর দিককার কবিতাসমূহে রোমান্টিসিজমের ছাপ স্পষ্ট। অনুবাদকৃত কবিতা দুটি তার সেই রোমান্টিক সত্তার প্রমাণ। আইরিশ জাতীয়তাবাদ আর রাজনীতি যেমন তার কবিতার উপজীব্য হয়ে এসেছে বারেবার তেমনি ব্যক্তি জীবনেও আইরিশ রাজনীতির সাথে তিনি ছিলেন ওতপ্রোতভাবে জড়িত। সাহিত্যে অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ ১৯২৩ সালে তিনি সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার অর্জন করেন। ১৯৩৯ সালে ৭৩ বছর বয়সে তিনি ফ্রান্সে মৃত্যুবরণ করেন।

Facebook Comments

comments

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top