নির্বাচিত বই ।। বিরহের তসবি।। জুলফিকার রবিন

বিরহের তসবি
বইয়ের ধরণ: কাব্য
লেখক: জুলফিকার রবিন
প্রকাশনী: বেহুলাবাংলা প্রকাশন

বইয়ের ফ্ল্যাপ থেকেঃ  
সময় যে জ্বালায় প্রদীপ
সকলের হাতে,
তাই নিয়ে ঘুণ্টি বাজিয়ে চলে প্রতিটি জীবন
প্রতি মানুষের সাথে।
মুখ চাওয়াচাওয়ি করে জীবনের সাথে
সকল মানুষ।
সেই চাওয়া থেকে যদি ধরা পড়ে কোনো
রূপ,
তাই তো সম্বল সকলের।
আর কী চাওয়ার আছে একজন কবির,
আমি তো জানি না।
আমাদের নতুন কবি জুলফিকার রবিন
সেদিকেই পা ফেলতে চান,
এবং আরো ফেলবেন
এমন ভরসাই অঙ্কুরিত হলো এই মনে
‘বিরহের তসবি’ পাঠ করে ।
-কবি নুরুল হক

—————————————
কাব্যগ্রন্থ থেকে ৫ টি কবিতা

মানুষ যেমন
মানুষের খুব কাছে গেলে দেখতে পাবে
কপালের ভাঁজে ভাঁজে ইতিহাস দর্শন
চোখের মণিতে রাজনীতির ছলাকলা
আর বুকের ভেতর কবিতার পাণ্ডুিলপি।
যার দেহে মিশে আছে মহাবিশ্বের আলপনা
তাকে কসমোলজির মত বুঝতে যেওনা
ভুলেও যদি মানুষকে বুঝতে চাও
আগে ধরে নিও এক সুনিশ্চিত ব্যর্থতা।

এবাদত
আমি যখন তোমাকে দেখিনা
তখন তুমি কাকে দেখো?
তোমার চকচকে চোখে
ভেসে ওঠে কার এবাদত?
আমার সারাদিনের বিভ্রান্তি শেষে
ডুবে যাই যে কাল্পনিক অতলে
সেখানে কে যেন তুলে দেয় ব্যথার দেয়াল।
এরপর আমি একচোখ পাহারায় রেখে
ঘুমাতে বলি আরেক চোখকে
তুমি এসে যেন ফিরে না যাও
স্বপড়ব অথবা জেগে থাকায়।

বিষের দাম বেড়ে গেলে
আমার খুন হয়ে যাওয়ার হাস্যজ্জ্বল দর্শক যিনি
তার দীঘর্শ¦াসও আমাকে ভাবিয়ে তুলতো।
ঠোঁটে কাউসারের ধারা দেখে তাকে ভালোবাসলাম
আর দোজখের কাঁটা হয়ে
সে আমার চিন্তায় আটকে গেল।
অতঃপর এসমস্ত নির্মমতাই যদি তাঁর স্বকীয়তা হয়
তবে বুঝে নেব,
বিষের দাম বেড়ে গেলে
মানুষেরা প্রেম কিনে খায়।

যদি হৃদয় পাতো কানে
তোমার দেহে যে আবহমান রূপের সম্মেলন
তার প্রতিটি ভাঁজেই আমি খুঁজে পাই
ইবাদতের ভাষা।
আমি যে তোমায় এত ডাকি
এত যে জপি তোমার নাম
লোকে তার প্রতিবাদ করেছিলো
অথচ তারা জানে না,
ও দেহের ভাষা জানলে
কাফেরও মত্ত হবে কঠোর উপাসনায়
মুশরিকেরা সব বসে যাবে
অনির্দিষ্টকালের ইতেকাফে।
তুমি বরং তোমার হৃদয়ের সাথে একটা কান জুড়ে দাও
অথবা কানের সাথে একটা হৃদয়
তাহলেই শুনতে পাবে
কতটা মর্মস্পর্শী আমার একাগ্রতার আজান।

কিছুদিন খুব ভালোবাসো
কিছুদিন খুব ভালোবাসো
আমি সবাইকে ডেকে ডেকে বলি-
দ্যাখো, এই না হলে ভালোবাসা!
এরপর হঠাৎ করেই যখন ছেড়ে যাও
আমি আর কাউকে মুখ দেখাতে পারিনা
সবাই আমায় ডেকে ডেকে বলে-
আচ্ছা! এই তোমার ভালোবাসা?

 

Facebook Comments

comments

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top