গুলজারের দুটি কবিতা।। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর জীবনানন্দ দাশ

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

গাঁয়ের পাশে নদী
সেখানে বারো মাস বিন্দু বিন্দু আকাশ ঝরে
জলতরঙ্গ বাজে
‘জল পড়ে, পাতা নড়ে’, … পাতা নড়ে, জল পড়ে
সারা গাঁয়ে জলতরঙ্গের বোল
মাঠে বীজ বুনে সিঞ্চন করে
বীজ অংকুর হলে
প্রথম পাতা ফোটে, ভাবনার পাখা ডানা মেলে
শব্দ যখন পলক খুলে দেখে সব
বৃক্ষ শাখায় কবিতারা চোখ মেলে
ফসলের মতো
মাঠে

একজন
আশে-পাশে বারো মাস গুনগুন করে
‘জল পড়ে, পাতা নড়ে’
পাতা নড়ে, জল পড়ে
গাঁয়ের পাশে এক নদী জলে টলমল
তাঁর বুকে বারো মাস বিন্দু বিন্দু আকাশ ঝরে!!

জীবনানন্দ দাশ

সে গেল যখন ডেকে, তখন আমি আধো ঘুমে
বোধহয় সে চলন্ত ট্রাম থেকে লাফিয়ে নেমেছিল
আর পা গিয়ে পড়েছিল ঝিলের জলে
ঝিলের জলে রাজহাঁস তার
দুই ডানা মেলে শনশন গিয়েছিল উড়ে
পালক হতে সোনালি রোদের গন্ধ ঝরিয়ে
চিল ফিরে এসেছিল আপন নীড়ে

আমি আধো ঘুমে…
ধোঁয়া, সন্ধ্যার অন্ধকার, শীতের আঁচড়
আর এরই মাঝে ট্রামের চাকা
চাকায় রক্ত চমকে ওঠে
চাকার নিচে কে যেন বাংলায় কবিতা পড়ে

‘হাজার বছর ধরে আমি পথ হাঁটিতেছি পৃথিবীর পথে’
এক টুকরো মেঘ চেহারা রেখেছে ঢেকে
তবু দুই কালো চোখ চোখে পড়ে
মনে পড়ে নাটোরের বনলতা সেন

 

গুলজার (জন্ম ১৯৩৮), উর্দু কবি, চলচ্চিত্র নির্মাতা, গল্পকার, গীতিকার। বাংলার প্রতি তাঁর ভালোবাসা অকৃত্রিম। এর শুরু রবীন্দ্রনাথের কবিতার অনুবাদ পড়ে। সেই দায় তিনি মেটাচ্ছেন রবী ঠাকুর উর্দুতে অনুবাদ করে। তাঁর মতে – বাংলা খুব সংক্রামক ভাষা… দুই সপ্তাহ কলকাতায় থাকলে আপনার উর্দু গোল গোল হয়ে যাবে। বাংগালী মেয়ে রাখির প্রেমে পড়ে বাংলায় প্রেম পত্র লিখেছেন, – “বাংলা ভাষায় দখল বাড়ানোর জন্য এর চেয়ে ভালো উপায় আর কী আছে”। এছাড়া, জীবনানন্দ দাশ, সুভাষ মুখোপাধ্যায় আর শক্তি চট্টোপাধ্যায়ের কবিতা উর্দুতে অনুবাদ করেছেন।
অনুদিত কবিতাগুলোর উৎস – পিছলে পন্নে (পেছনের পৃষ্ঠা), প্রকাশক উর্দু মারকায, বিহার, ভারত, ২০১৩

Facebook Comments

comments

২ Replies to “গুলজারের দুটি কবিতা।। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর জীবনানন্দ দাশ”

  1. Avatar Muhammad Taher বলেছেন:

    “শব্দ যখন পলক খুলে দেখে সব
    বৃক্ষ শাখায় কবিতারা চোখ মেলে
    ফসলের মতো
    মাঠে …”
    এতো মিস্টি, এতো গভীর গুলজার? জানা হলো জাভেদ এর কল্যাণে। কাকে ধন্যবাদ দিই?

    -তাহের।

    1. Avatar javed বলেছেন:

      অবশ্যই গুলজারকে তাহের ভাই।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

scroll to top